নরওয়েতে শান্তির পাঠ!


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ॥ পাহাড়, পর্বত ও সমুদ্রবেষ্টিত নরওয়ে। অপরুপ এই সৌন্দর্য্যের বুকে এক কালিমা এঁকে দিলো ২২ জুলাই। ২০১১ সালের ‌‌২২ জুলাই রাজধানী অসলো ও ছোট্র দ্বীপ উটোয়ার বুকে রক্তের স্রোত বয়ে গেলো। বোমা হামলা আর এলোপাতাড়ি গুলি এই দুই ঘটনায় সবমিলিয়ে ৯২ জন নিহত হয়েছেন। প্রজন্ম, গণতন্ত্র ও শান্তির ওপর এই আক্রমণ। উটোয়াতে নিহতদের সকলেই মেধাবি তরুণ এবং রাজনীতি সচেতন। নিহতদের মধ্যে হয়ত নরওয়ের ভবিষ্যতের প্রধানমন্ত্রীও ছিলেন। নরওয়েবাসির জীবনে অনন্তকাল ধরে এই দিনটি (২২ জলাই) একটি কালো দিন হিসেবেই ফিরে আসবে ফি বছর।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম একটা বড় ম্যাসাকারের যন্ত্রণা বুকে নিলো দুনিয়ার সবচেয়ে শান্তির দেশ নরওয়ে। শান্তিপ্রিয় নরওয়ের মানুষ শোকে পাথর, ‌ম্যুহমান। যে দেশের পুলিশ সাধারণত: অস্ত্র নিয়ে দায়িত্ব পালন করেনা সেই দেশের কোন নাগরিক আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে এতগুলি প্রাণ কেড়ে নিতে পারে? এটা কল্পনাতেও ছিল না নরওয়ের মানুষ কিংবা প্রশাসনের। শান্তি, গণতন্ত্র, সৌহার্দ্য ও মানবাধিকারের দেশ প্রকৃতির মনোরম সুন্দর এই দেশটি। না কোন ইসলামী জঙ্গিগোষ্ঠী এই হামলা চালায়নি। ৩২ বছর বয়সী এক যুবক, যিনি মালটি কালচার থিওরিবিরোধী খ্রিষ্টান। চরম দক্ষিণপন্থি মানসিকতাসম্পন্ন এই ব্যক্তি আজ সারা নরওয়ের মানুষের মনে বেদনার ক্ষত সৃষ্টি করে দিলো। কিন্তু কেন? নৃশংসতা, মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ কী কখনো কোন মতবাদ প্রতিষ্ঠা করতে পারে? চরমপন্থা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। সেটা ইসলাম কিংবা খ্রিষ্টান যেখান থেকেই আসুক না কেন? পৃথিবীর কোন ধর্মই অবশ্য এই চরমপন্থার কোন শিক্ষা দেয়নি।
নরওয়ের মানুষ আজ ক্ষুব্ধ। ঘাতকের প্রতি হ্রদয়জুড়ে ঘৃণা। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে রাজপথ জনতার স্রোতে ভাসছে। কিন্তু কারও মনে নেই কোন হিংসা, প্রতিহিংসা কিংবা প্রতিশোথ স্পৃহা। কি দারুণ সংস্কৃতি ও শিক্ষা!
আপদ-অপশক্তি মোমের আলোয় জ্বলে ছারখার হবে নিশ্চয়। জয় হবে মানুষের সংহতি, ভালবাসা আর মানবিকতার। নরওয়ে আবার ফিরে পাবে শান্তির আলো বিকিরণের শক্তি। ছবি-ইন্টারনেট (ফেইসবুক থেকে নেয়া)
লেখক: মানবাধিকারবিষয়ক অনলাইন সংবাদপত্র “ইউরো বাংলা”র সম্পাদক (http://www.eurobangla.org/), (https://penakash.wordpress.com/) (editor.eurobangla@yahoo.de)।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s