সাগর-রুনি হত‍্যাকান্ডের ১০ দিনেও খুনি গ্রেফতার হয়নি: গোয়েন্দা পুলিশ ও র‍্যাব রাখার দরকার কী?


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। দেশে কোন সাংবাদিক নৃশংসভাবে খুন হওয়ামাত্র ডান বাম, মধ‍্যমপন্থি সব মতের সাংবাদিকরা একাট্রা হন। হত‍্যার বিচার ও খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে সোচ্চার হন সাংবাদিকরা। রাজধানী ঢাকায় দুই টিভি সাংবাদিক একযোগে নিজ বাসায় বর্বরভাবে খুন হয়েছেন গত ১১ ফেব্রুয়ারি। নিহতরা জনপ্রিয় সাংবাদিক এবং দম্পত্তি। এই জোড়া সাংবাদিক খুনের পরও সাংবাদিক সমাজ একজোট হয়ে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে। ২২ ফেব্রুয়ারি তারা সমাবেশ করবে ঢাকায়। একইসঙ্গে সারাদেশে সাংবাদিকরা সমাবেশ করবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এমন একতাবদ্ধ হবার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। এর আগেও আমরা মানিক সাহা, বালু, কেবল কিংবা বেলাল হত‍্যাকান্ডের পরও সাংবাদিকরা একজোট হয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জোট বেশিদূর এগোয়নি। এক পর্যায়ে এসে সাংবাদিকদের আন্দোলন থেমে যায়। তারা ক্লান্ত হয়ে পড়েন। প্রকৃত হত‍্যাকারি খুনিরা কেউই ধরা পড়েনা, পড়েনি। যে কারণেই ঘটুক, পেশাগত কারণ বা ব‍্যক্তিগত কারণ যাই ঘটুক না কেন এতবড় ঘটনা, দু দুজন খ‍্যাতিমান সাংবাদিক নিজ ঘরে খুন হলেন। কিন্তু তারপরও ঘটনার প্রতিবাদে সংবাদপত্র ও মিডিয়া বন্ধ রাখা হয়নি এক সেকেন্ডের জন‍্যও। এবারের জোট ও আন্দোলনও যে মাঝপথে থেমে যাবে না তার নিশ্চয়তা কোথায়?
সাগর-রুনি হত‍্যাকান্ডের ঘটনায়তো এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। যেখানে হত‍্যাকান্ডের পরদিন পুলিশ প্রশাসন ও সরকার পরিস্কার হয়ে গিয়েছিল খুনিদের সম্পর্কে সেখানে হত‍্যাকান্ডের ১০ দিন পার হলেও খুনের রহস‍্যও উন্মোচিত হলো না, কেউ গ্রেফতারও করেনি পুলিশ। কারণে অকারণে গ্রেফতার, নির্যাতন আর বিচার বহির্ভূত হত‍্যাকান্ডে পটু রাষ্ট্রীয় এলিট ফোর্সও যেন কোন এক অজানা বাঘের গর্জনে ভড়কে গেছে! গোয়ন্দাজালে খুনিরা ঢুকে পড়লো, আবার সেই জাল থেকে বেরিয়ে গেলো। বাহ্ চমৎকার কৌশল। পুলিশ, ডিবি, সিআইডি, র‍্যাব, আইজি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সবাই যখন ব‍্যর্থ সাগর-রুনির খুনিদের শনাক্ত করতে তখন আনস্মাট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন সাংবাদিক দম্পত্তি খুনের মামলাটি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীই তদারকি করছেন। খুনিদের বাঁচাবে কে, চাঞ্চল‍্যকর এই মামলা ধামাচাপা দেবার কোন সম্ভাবনা নেই! কিন্তু নানান ছলাকলায় যে সাগর রুনির খুনিদের রক্ষার একটা কৌশল অবলম্বন করেছে প্রশাসন তা দেশবাসির কাছে চাউর হয়ে গেছে ইতোমধে‍্য।
কিন্তু তারপরও পুলিশ ও সরকারের কর্তাব‍্যক্তিরা দিন দিন নতুন নতুন তত্ত্ব হাজির করছে দেশবাসির সামনে। কবে না জানি আবার কোন জজমিয়া নাটক মঞ্ছস্থ হয়! সব সম্ভবের এই দেশে সাধারণ মানুষ কোন আশ্বাসেই আর ভরসা রাখতে পারছেন না। ঢাকা মেট্রাপলিটন পুলিশের কমিশনার বেনজির আহমেদ সাংবাদিকদেরকে পুলিশের ওপর আস্থা রাখতে বললেন। তারা নাকি সাংবাদিক ও সাগর-রুনির পরিবারেরর চেয়েও দরদ দিয়ে ঘটনার তদন্ত করছেন! খুনিদের শনাক্ত করতে পেরেছেন কিনা এমন প্রশ্নের উত্তর অবশ‍্য এই পুলিশ কর্মকর্তা এড়িয়ে গেছেন।
সাগর-রুনির ঘাতকদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করার কথা ইতোমধে‍্য ঘোষণা করেছেন সাংবাদিক মেহেরুন রুনির মা নুরুন্নাহার মির্জা। তবে এই কর্মসূচী কবে করবেন তিনি তা এখনও প্রকাশ করেননি। সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত দ্রুত শেষ করে খুনি গ্রেফতারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। সাগর-রুনি হত‍্যা রহস‍্য উৎঘাটনে শেষ পর্যন্ত হয়ত সরকার আরেকটি নাটক করতে পারে! সেটা হলো মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই ও যুক্তরাজে‍্যর গোয়েন্দা সংস্থা স্কডল‍্যান্ড ইয়ার্ডেরও সহায়তা চাওয়া হতে পারে।
দৈনিক ভোরের কাগজের এক রিপোর্টে এমন একটি আভাষ দেয়া হয়েছে। সরকার হয়ত এই নাটক করেও ঘটনার কালক্ষেপণ করতে পারে বলে জনমনে জল্পনা কল্পনা বাড়ছে। ঘটনার ১০ দিন পর পুলিশ এখন নিহত সাংবাদিক সাগর সরওয়ারের শার্ট প‍্যান্টের খোঁজ করে বেড়াচ্ছে! ভোরের কাগজের রিপোর্টে র‍্যাবের ইনটেলিজেন্স উইংয়ের এক কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, সাগর-রুনি হত‍্যাকান্ডের শেকড় নাকি অনেক গভীরে! তারা এতকিছু বলতে পারছে আর কারা খুন করেছে তাদরেক শনাক্ত করতে পারছে না। এটা কী বিশ্বাসযোগ‍্য? সংবাদপত্রগুলিতে সাগর-রুনির হত‍্যাকান্ডের বিষয়ে রিপোর্টের পরিসরও ছোট হয়ে আসছে।
যে ঘটনার তদারকি স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী করেন সেই ঘটনায় খুনিরা ১০ দিনেও গ্রেফতার হয় না। তাহলে এত বিপুল অর্থ ব‍্যয় করে পুলিশ, র‍্যাব আর গোয়েন্দা লালনের দরকার কী? ছোট খাটো ব‍্যক্তিগত দ্বন্দ্ব-বিরোধ আর মারামারির ঘটনায় র‍্যাব বা পুলিশকে যত করিৎকর্মা মনে হয় সাগর-রুনির মতো ভয়াবহ হত‍্যাকান্ডের ঘটনায় তেমনটা পরীলক্ষিত হচ্ছে না। হত‍্যাকান্ডের ঘটনায় সবকিছু জেনে যাবার পরও কোন ইশারা আর কারণে প্রশাসন একেবারে ইউটার্ণ নিলো তার অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা আছে কী আমাদের এই বাংলায়? ছবি-ফেইসবুক থেকে নেয়া।

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s