সাগর-রুনির নৃশংস হত‍্যাকান্ড ।। পরিকল্পিত খুন হচ্ছে ডাকাতি, আসল খুনিরা বেঁচে যাচ্ছে!


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। “ডাকাতির ঘটনাটি যাতে বিশ্বাসযোগ‍্য হয় সেজন‍্য পর্যাপ্ত সাক্ষ‍্য-প্রমাণ, আলামত প্রয়োজন। এজন‍্য ডাকাতদের গ্রেফতারের পাশাপাশি লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে।” বাংলাদেশের অন‍্যতম জনপ্রিয় জাতীয় বাংলা দৈনিক জনকণ্ঠ ২৮ ফেব্রুয়ারি সংখ‍্যায় এক রিপোর্টে গোয়েন্দা সংস্থার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে উপরোক্ত বক্তব‍্যটি প্রকাশ করেছে।
দেশের একটি প্রাচীন প্রগতিশীল বাংলা দৈনিক সংবাদ এর একই দিনের রিপোর্টে বলা হয়, “গ্রেফতারকৃতদের ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘটনার দায়-দায়িত্ব চাপানোর চেষ্টাও প্রায় শেষ পর্যায়ে। তাদের মিডিয়ার সামনে কথা বলার উপযুক্ত করে তোলা হচ্ছে। ঘটনার বর্ণনা কিভাবে দিতে হবে, তাও প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। শিখিয়ে দেয়া মুখস্থ বুলি মিডিয়ার সামনে প্রকাশ করবে গ্রেফতারকৃতরা। সংঘবদ্ধ চোরের দল সাগর-রুনির ফ্ল্যাটের গ্রিল কেটে ভেতরে ঢোকে। তারপর বাসায় চুরি করতে বাধা দেয়ায় খুন করা হয় সাংবাদিক দম্পতিকে। তারপর ওই কাটা অংশ দিয়েই পালিয়ে যায় চোরের দল।”
সাংবাদিক দম্পত্তি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনির নৃশংস হত‍্যাকান্ডের ঘটনার ১৭ দিনের মাথায় সরকারের তরফ থেকে এমন বক্তব‍্য প্রদান করলো গোয়েন্দারা। অথচ হত‍্যাকান্ডের পরপরই সাগর-রুনির ঘরের কাটা জানালা দিয়ে একটি বাচ্চাও বের হবার মতো কোন সম্ভাবনা নেই বলে গোয়েন্দা ও পুলিশ কর্তারা জানিয়েছিল। একটা অসভ‍্য, জংলি ও বর্বর সমাজ ও রাষ্ট্রেই এমন ডাহা কাল্পনিক সাজানো কল্পকাহিনী ও মিথ‍্যাচার শোভা পায়। আমাদের স্বদেশ কী সেই মধ‍্যযুগীয় বর্বরযুগ অতিক্রম করছে? সবকিছুই ভন্ড আর বেঈমানদের কব্জায় এখন আমাদের স্বদেশ! এটা বোঝার আর বাকি রইলো না যে হাসিনার নির্দেশে পুলিশ ও গোয়েন্দারা এই ‘মহানাটক’ মঞ্চায়নের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে ফেলেছে। হাসিনার নিদর্েশে ডাকাতদলের হাতে খুনের মহানাটক মঞ্চায়নের এই সাজানো ঘটনাকে কী দেশের মানুষ মেনে নেবেন? নাকি তারা জেগে ওঠবেন সকল অনৌ‍্যায়-অবিচার আর অমানবিকতার বিরুদ্ধে। সেটাই এখন দেখার বিষয়।
দেশের মানুষের প্রশ্ন কী এমন সম্পকর্ খুনি বা খুনিদের সঙ্গে এই সরকার তথা সরকারপ্রধানের? যার কারণে খুনিদের রক্ষা করে সাগর-রুনির আত্মাকে কষ্ট দিয়ে এবং শিশুসন্তান নিষ্পাপ মেঘের প্রতি অবিচার করার মতো নিষ্ঠুরতা প্রমাণ করতেও দ্বিধা করছে না সরকার! কী কারণে হাসিনা ও তার সরকারের বুদ্ধিদাতা, দলীয় বুদ্ধিজীবীরা এখনও চুপচাপ বসে এই অমানবিক অবিচারের পথ রুখতে তৎপর হচ্ছে না, সেটা আমাদের বোধগম‍্য নয়।
সাংবাদিকতা ও সাংবাদিকদের স্বাধীনতা-নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে ডান-বাম, উত্তম-মধ‍্যম সকল শ্রেণীর সাংবাদিক একজোট হয়েছে। সাগর-রুনি হত‍্যাকান্ডের খুনিদের গ্রেফতার এবং বিচারের দাবিতে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রথিতযশা প্রবীণ সাংবাদিক এ বিএম মুসা ও নির্মল সেন শারীরীকভাবে অসুস্থ‍্য হবার পরও এই আন্দোলনকে এগিয়ে নেয়ার সাহস যুগিয়ে যাচ্ছেন। সাংবাদিকদের এই আন্দোলন কেবল সাগর-রুনির খুনিদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবির সঙ্গেই জড়িত নয় এটা সাংবাদিকদের জীবন ও পেশার মযর্াদা এবং মানুষের স্বাভাবিক মৃতু‍্যর নিশ্চয়তার বিষয়টিও জড়িয়ে আছে।
অবিচার, মিথ‍্যাচার আর দুবর্ৃত্ত রাজনীতির শৃঙ্খল ভাঙতে না পারলে স্বদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে কী বিশ্বদরবারে? সাগর-রুনির রক্তের ওপর দাঁড়িয়ে গড়ে ওঠা ঐক‍্যবদ্ধ সাংবাদিক সমাজ কী পারবে ঘুরে দাঁড়াতে এই দুবর্ৃত্তায়নের আবহ থেকে বেরিয়ে আসতে? এই নবঐক‍্য কী পারবে জনগণকে ন‍্যায়বিচারের পথ দেখাতে? নাকি আবারও হাসিনা আর খালেদা এই দুইশিবিরে বিভক্ত হয়ে জনগণের ভরসাস্থলটি ভেঙ্গে পড়বে? সাগর-রুনির হত‍্যাকান্ড যে কোনভাবেই একটা নিছক ডাকাতির ঘটনা ছিল না তা সরকার বুঝলে ভালো, নইলে আখেরে হাসিনাকেই তার মাশুল দিতে হবে! এতে মানুষের কোন প্রশ্ন নেই।
পরিকল্পিত খুন হচ্ছে ডাকাতি। আসল খুনিরা বেঁচে যাচ্ছে। এমন পথের দিশাই হয়ত সরকার জাতির সামনে প্রকাশ করবে শিগগিরই। যে নিরীহ ও অসহায় মানুষগুলিকে ধরে এনে সরকার সাগর-রুনির খুনি বানানোর চেষ্টা করছে তাদের পরিবারগুলির কী অবস্থা হবে? এই অবিচার দেশের ১৬ কোটি মানুষ সহ‍্য করতে পারে, দেশের মিডিয়াগুলি চুপচাপ থাকতে পারে কিন্তু প্রকৃতি এই অবিচার সইবে না! সাগর-রুনির লাশ-ছবি আমার দেশ থেকে নেয়া।

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s