সাংবাদিক সাগর-রুনির পর খালাফ হত‍্যাকান্ড : “মধ‍্যরাতে রাস্তায় সরকারের পক্ষে পাহারা বসানো সম্ভব নয়”!

জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। সাংবাদিক দম্পত্তি সাগর-রুনি খুন হয়েছিলেন নিরাপদ বেডরুমে। তাই প্রধানমন্ত্রি বলেছিলেন সরকারের পক্ষে কারও বেডরুম পাহারা দেয়া সম্ভব নয়। আর একজন কূটনীতিক খুন হলেন নিরাপদ কূটনীতিকপাড়ায়। বাংলাদেশে কোন কূটনীতিককে হত‍্যা এটাই প্রথম ঘটনা। যাহোক, সাগর-রুনি হত‍্যামামলা সম্পর্কে সাংবাদিকরা যাতে কোন রিপোর্ট প্রকাশ বা প্রচার করতে না পারে তারজন‍্য দেশের সর্বোচ্চ আদালত রুল জারি করেছিল। আদালত বলেছিল, সাগর-রুনি হত‍্যামামলার তদন্তে সরকার ঠিকপথেই এগুচ্ছে! কিন্তু হত‍্যাকান্ডের ২৭দিনেও খুনিরা ধরা পড়েনি, খুনের রহস‍্যও উন্মোচন হয়নি। খুনি ধরা পড়বে বলে মানুষের মনে কোন বিশ্বাস জন্মাবার মতো কোন কাজ সরকারের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত করা হয়েছে বলে মনে করেন না দেশের মানুষ। সাগর-রুনির হত‍্যাকান্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই আরকে চাঞ্চল‍্যকর হত‍্যাকান্ড ঘটে গেলো রাজধানী ঢাকাতেই। এবার খুন হলেন বাংলাদেশেস্থ সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তা খালাফ আল আলী। ৬ মার্চ দিবাগত মধ‍্যরাতে তিনি খুন হন রাজধানী ঢাকার কূটনীতিকপাড়া অভিজাত গুলশানে। আদালত এই হত‍্যাকান্ডের কোন রিপোর্ট প্রকাশ বা প্রচার করা যাবে না এমন কোন আদেশ এখনও দেয়নি। তাই সাংবাদিকরা এখন ব‍্যস্ত খালাফ হত‍্যাকান্ড নিয়ে বিশেষ প্রতিবদেন তৈরীতে! সরকারের বাচাল বলে পরিচিত কর্তারা এখনও এবিষয়ে তেমন কোন বেফাঁস কথা বলেন নি। “মধ‍্যরাতে রাজপথে কাউকে পাহারা দেয়া সরকারের পক্ষে সম্ভব নয়” এমন মন্তব‍্যও করেন নি প্রধানমন্ত্রী! তবে সংবাদপত্রগুলি এই হত‍্যাকান্ড নিয়ে নানান রিপোর্ট লিখছে। এরমধে‍্য উল্লেখযোগ‍্য হলো, সৌদি আরব ঢাকায় বিশেষ টিম পাঠাবে খালাফ হত‍্যাকান্ড তদন্ত করতে। সৌদি ছায়া দৈনিক ইত্তেফাক বলছে, বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি সৌদি সরকার এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ধারে একটি ‘ছায়া তদন্ত’ করবে। চাঞ্চল‍্যকর এই হত‍্যা মামলা তদন্ত করতে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) এর একটি দল বাংলাদেশে আসছে বলেও ইত্তেফাক লিখেছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রি ডা. দীপু মনি বলেছেন, “খালাফ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সৌদি আরব তদন্ত দল পাঠালে সরকারের অমত নেই।” পররাষ্ট্রমন্ত্রির এই বক্তব‍্যই প্রমাণ করে যে সরকার হত‍্যা-খুনিদের গ্রেফতার কিংবা খুনের রহস‍্য উন্মোচনে ব‍্যথর্! দেশের পুলিশ ও এলিটবাহিনী সাগর-রুনি ও খালাফদের খুনিদের গ্রেফতারে ব‍্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে! কিন্তু বিনাবিচারে মানুষ হত‍্যায় তাদের কোন কার্পণ‍্য নেই। সাম্প্রতিককালে যেন এই দৌরাত্ব বেড়েছে! এই যে সন্ত্রাস দমনের নামে ধারাবাহিকভাবে মানুষ মারা হচ্ছে বিনাবিচারে, তাতে কী মেঘরা তাদের প্রিয় বাবা-মাদের ভালবাসাকে কাছে ধরে রাখতে পারছে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রি বেফাঁস কোন কথা আর বলবেন না প্লিজ! দেশের ভেতরে বসবাসরত এমনকি বিদেশের মাটিতে যেসব বাঙালি আছে তাদের সবার নিরাপত্তা দেবার দায়িত্বটা কিন্তু সরকারেরই। সেটা কেউ বেডরুমে থাকুক আর কূটনীতিকপাড়ার রাস্তায় থাকুক, কিংবা দিনের আলোতে হোক আর গাঢ় অন্ধকার মধ‍্যরাতে হোক। নাকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রি এবার আপনি বলবেন যে, “মধ‍্যরাতে রাস্তায় সরকারের পক্ষে পাহারা বসানো সম্ভব নয়”! শব্দহীন অনন্ত ভালবাসার এই ছবিটা ফেইসবুক থেকে নেয়া।

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s