সাগর-রুনির খুনিরা ধরা পড়বে না, বিচার ঢাকা পড়ছে অবিচারের থলেতে!


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। সেখানে কোন নিয়ম আছে কী? ধরুন আপনি একটা ব‍্যবসা করেন। আপনার ব‍্যবসা ভালোই চলছে। হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম আর সততার সঙ্গে আপনি মানুষের ভালবাসা পেয়েছেন। আপনার প্রতিষ্ঠানের জনপ্রিয়তা বেড়েছে। আপনার প্রতিষ্ঠানের সুনামকে ভালো চোখে দেখছে না আপনার ব‍্যবসার প্রতিযোগিরা। একারণে তারা ষড়ডন্ত্র করতে শুরু করে। তার অংশ হিসেবে কৌশলে কাস্টমার সাজিয়ে আপনার প্রতিষ্ঠানে কাউকে পাঠানো হলো। সেই কাস্টমার আপনার ঘর থেকে বেরিয়ে যাবার পর একটা কাল্পনিক আজগুবি অভিযোগ সাজালো। থানায় সেই অভিযোগ দিলো। অভিযোগে বললো যে তার ৫০ হাজার টাকা বা বিশ ভরি সোনা ভর্তি একটা ব‍্যাগ চুরি হয়েছে আপনার দোকান থেকে। এরপর পুলিশ কোন যাচাই বাছাই কিংবা তথ‍্যানুসন্ধান প্রমাণ ছাড়াই আপনাকে এবং আপনার প্রতিষ্ঠানের সববাইকে থানায় ধরে নিয়ে যাবে। অথচ কেউ কোন দোকানে বা প্রতিষ্ঠানে এত বিপুল টাকা বা সোনা নিয়ে গেলে তারই দায়িত্ব তার দেখভাল বা নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। অথবা টাকা ও স্বর্ণালংকার বহনকারি ব‍্যক্তির উচিৎ তা দোকান বা ব‍্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকের কাছে ঘোষণা দিয়ে গচ্ছিত রাখা। এই সাধারণ বিষয়টি সারাবিশ্বেই অনুসরিত হয়। কোন ব‍্যক্তি যদি কারও দোকানে, ব‍্যবসা প্রতিষ্ঠানে বা বাড়িতে বেড়াতে যায় তাহলে কী ১৫/২০ ভরি সোনা কিংবা লাখ টাকা সঙ্গে নিয়ে যায় আমাদের সোনার বাংলায়? এই অতি সাধারণ বিষয়গুলিও পুলিশ খুঁজে দেখে না।
আমার এই গল্প যদি আপনার/আপনাদের বিশ্বাস না হয় তাহলে তাহলে নমুনা প্রমাণ সংগ্রহের জন‍্য একটা মহড়া দিতে পারেন আপনি/আপনারা। তাহলেই গল্পের সত‍্যতা খুঁজে পাবেন, এবিষয়ে আমি একশত ভাগ নিশ্চিত। এতো গেলো কাউকে ফাঁসানোর জন‍্য মিথ‍্যা গল্প সাজানো। গল্পটি যখন পুলিশের হাতে যাবে তখন পরিস্থিতি আরও ভয়ংকর রুপ নেবে। পুলিশ শুরু করবে তাদের ব‍্যবসা। ব‍্যবসা মানে ঘুষ বাণিজ‍্য। আর এই কাল্পনিক অভিযোগ ও পুলিশের মারপ‍্যাঁচে পড়ে আপনার ব‍্যক্তিগত, প্রাতিষ্ঠানিক ও পারিবারিক সব সুনাম ও মর্যাদা ধূলোয় মিশে যাবে। পাশাপাশি সততা আর স্বচ্ছতা গুমরে গুমরে কাঁদবে। সমাজ, বিচারালয়, আইন, সংবিধান, রাষ্ট্র, সংসদ, রাষ্ট্রনেতা কোথাও থেকে মিলবে না ন‍্যায়বিচার।
এমন এক দেশ আমার মাতভূমি। মায়ের কোল কী কখনও নোংরা হতে পারে? কখনও না। কিন্তু সব মায়ের সন্তান কী মায়ের প্রত‍্যাশা অনুযায়ী বড় হয়ে ওঠে বা উঠতে পারে? নাকি মায়ের কপালে কলংকের তীলকও পরিয়ে দেয় কোন কোন সন্তান? সেরকম কোন সন্তান মাকে কোন শ্রদ্ধা দেখাতে পারে বলে আমার বিশ্বাস নেই। আর এমন সন্তান দ্বারা পরিচালিত আমার স্বদেশ, মায়ের ভূমি। তাইতো মায়ের এতো বদনাম!
অনেকে স্বদেশকে সব সম্ভবের দেশ বলে। এমন জন্মভূমি পৃথিবীর কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে না সতি‍্য কথা। এখানে টাকা আর ক্ষমতা সবকিছুকেই নিয়ন্ত্রণ করে। আপনার যদি টাকা থাকে, ক্ষমতার কাছাকাছি থাকে এমন কেউ যদি আপনার সুহৃদ হয় তাহলে তো আপনিও নিজেকে দেশের প্রধানমন্ত্রি ভাবতে পারবেন। আপনার জন‍্য সাতখুন মাফ! এই দেখুন সাংবাদিক দম্পত্তি সাগর-রুনি খুন হলেন নিজ শয়নকক্ষে। অথচ আজও খুনিরা ধরা পড়েনি। সাগর-রুনির একমাত্র শিশু সন্তান মেঘ বাবা-মা হত‍্যার বিচার পাবে বলে আশা করা যায় না। আমার স্বদেশে বিচার অবিচারের ভেতরে ঢাকা পড়ছে প্রতিনিয়ত! সাংবাদিক সাগর-রুনির খুনিরা ধরা পড়বে না। কারণ বিচার ঢাকা পড়ছে অবিচারের থলেতে! ছবি ফেইসবুক খেকে নেয়া।

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s