অপরাধ ও অপরাধীকে আঁড়াল আর ঘটনাকে ধামাচাপা দিতেই তদন্ত!


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ।। অপরাধ ও অপরাধীকে আঁড়াল আর ঘটনাকে ধামাচাপা দিতেই তদন্ত! এটা একধরণের সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে ওখানে আমাদের মায়ের ভূমিতে।
তদন্ত কমিটি গঠন মানেই ঘটনার রহস‍্য উৎঘাটন বা দোষীদের শনাক্তকরণ নয়। তদন্ত কমিটি অথর্ অপরাধীকে বাঁচানো বা আঁড়াল করা বা ঘটনাটিকে যেকোনপ্রকারেই হোক ধামাচাপা দেয়া। দোষ গণতন্ত্রহীনতার। রাজনীতিকরাই এজন‍্য দায়ি (সব রাজনীতিক নন যারা সৎ, দেশপ্রেমিক তাঁরা ব‍্যতিক্রম)। আমরা গণতন্ত্র, গণতান্ত্রিক বলে নিজেদের জাহির করি দেশে এবং বিদেশে। কিন্তু গণতন্ত্রের যে প্রধান শতর্ই হলো মতপ্রকাশ, ভিন্নমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সহনশীলতা এসব মৌলিক কথাই আমরা ভুলে যাই।
আমরা কেবল যেনতেন এবং যেভাবেই হোক তালগাছটাকেই চাইছি সবাই। তালগাছ না পেলে বিচার ও শালিশ মানি না। এই শয়তানি সংস্কৃতির থেকে দেশ-জাতিকে বেরিয়ে আনার জন‍্য যে সাহসী নেতৃত্ব দরকার তা হয়ত আছে দেশের ভেতরেই। কিন্তু একটা আদশর্ যে আদশর্ হবে জনগণ জনগণ এবং জনগণ সেই আদশর্কে সামনে এগিয়ে নিতে পারছি না আমরা কেউই। সমস‍্যাটা কোথায়? প্রতিদিন অহনর্িশ আমাদের বুদ্ধিজীবীগণ লিখছেন (আওয়ামী সমথর্করা বিএনপির বিরুদ্ধে আর বিএনপি সমথর্করা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে, এইজোটভুক্তদলগুলি এই দু’টি দলেই সম্পৃক্ত) কিন্তু সমাধান বেরুচ্ছে না।
আমাদের দেশে অভিযোগ ওঠে যার বা যে বিভাগের বিরুদ্ধে সেই বিভাগই তার তদন্ত করে। ফলে তদন্তের উদ্দেশ‍্যই থাকে সংশ্লিষ্ট বিভাগ বা ব‍্যক্তিকে রক্ষা করা। কারণ রাজনৈতিক উপরমহলের তৎবির। পরিণামে যা হবার তাই হয়, অপরাধীর কিছুই হয় না। অপরাধ ঘটতে থাকে বারবার, সমানভাবে। অপরাধী হয় উৎসাহিত। জনগণ হয়ে পড়েন অসহায়, দিশেহারা আর ক্ষতিগ্রস্ত। এই যে ৭০ লাখ টাকা নগদ পাওয়া গেলো একটা কারে। এই টাকার উৎস কী তাও ইহজনম নয় পরজনমেও জানা যাবে না। এটাই হলো সোনার বাংলা, বাংলাদেশ! বাংলাদেশেতো সিংহভাগ মানুষের আয়ের সঙ্গে ব‍্যয়ের কোন মিল নেই। কে দায়ি? জীবন, সমাজ সংসারের প্রয়োজন মেটাতে মানুষ অসাধু, অনৈতিক পথ তথা দুর্নীতির আশ্রয় নিচ্ছেন। পুরো পদ্ধতি ও কাঠামোটাকে ভেঙ্গে নতুন করে একটা সমাজ বিনির্মাণ করা ছাড়া কী চলমান হরিবোল অবস্থাকে পাল্টানো যাবে?
জনগণকে আর কত মূল‍্য দিতে হবে একটা সুন্দর, শান্তিপূণর্ সোনার বাংলাদেশ, যেখানে থাকবে না কোন বৈষম‍্য, অন‍্যায়-অবিচার, থাকবে শুধু আইনের শাসন, মানবাধিকার, সুশাসন, বিশ্বাস, শ্রদ্ধা, ভালবাসা আর মানবকল‍্যাণ প্রতিষ্ঠার জন‍্য। মোটা দাগে যাকে বলি আমরা মানবমুক্তি। সেই মুক্তি ছাড়া কী কোন একটা সমাজকে সভ‍্য ও গণতান্ত্রিক বলা যায়? ছবি বিডিনিউজ

Advertisements

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s