সাংবাদিক হত‍্যা-নির্যাতন: বেডরুম থেকে রাজপথ হয়ে মিডিয়া অফিস!!!


জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। বেডরুম থেকে রাজপথ হয়ে মিডিয়া কার্যালয়ে গিয়ে পৌঁছলো সাংবাদিক হত‍্যা-নির্যাতনের ধারা! হত‍্যা বা নির্যাতন যে কারণেই বা যেভাবেই হোক হত‍্যা হত‍্যাই, নির্যাতন নির্যাতনই। রাষ্ট্র বা সরকার এর দায় কী এড়াতে পারে? “কোন নাগরিকের বেডরুম পাহারা দেয়া সম্ভব না” বলে কী কেউ দায়-দায়িত্ব এড়াতে পারেন? কিংবা “উনাদের আমলে সাংবাদিকরা ঐক‍্যবদ্ধ হননি কেন, আমার আমলে বেশি স্বাধীনতা তাই উনারা রাজপথে নেমেছেন” এমন অর্বাচিন মন্তব‍্য কী মেনে নেয়া যায়? বিশেষ করে এমন বক্তব‍্য যদি আসে সরকার প্রধানের মুখ থেকে! এটাকে কী তবে ‘স্লিপ অব টাংগ’ বা কোন সাধারণ ভুল বলে গণ‍্য করা যায়?
প্রবীণ সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ এবং তাঁর স্ত্রীকে হত‍্যা করা হলো রাজধানী ঢাকায় নিজ ফ্ল‍্যাটে। এরপরে এলো টিভি সাংবাদিক দম্পত্তি সাগর সরোয়ার ও মেহেরুন রুনীর পালা। উনারা নৃশংসভাবে খুন হলেন নিজ শোবার ঘরে। প্রধানমন্ত্রি বললেন, সরকারের পক্ষে কারও বেডরুম পাহারা দেয়া সম্ভব নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রি বললেন সাগর-রুনির খুনিদের ২৪ ঘন্টার মধে‍্য ধরা হবে। তিনি কথা রাখলেন না! সরকার নাহয় বেডরুম পাহারা দিতে নাইবা পারলো কিন্তু রাজপথ? রাজপথেতো অনেক পুলিশ, র‍্যাব! সেখানে কেন রক্ষকই ভক্ষক হবে? রাজপথে সাংবাদিকদেরকে কী নিষ্ঠুর নির্যাতন করলো পুলিশ। প্রথম আলোর তিন ফটো সাংবাদিক নির্যাতিত হলেন অমানবিক পুলিশ বাহিনীর হাতে। প্রধানমন্ত্রি মুখে কুলুপ আঁটলেন।
সাংবাদিক নির্যাতনের সর্বশেষ অপারেশন হলো দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন প্রকাশনা বিডিনিউজ২৪ এর কার্যালয়ে। সন্ত্রাসীরা সেখানে দুই সাংবাদিকসহ তিনজনকে গুরুতর আহত করলো। এবারেও প্রধানমন্ত্রি কোন কথা বললেন না। তবে স্বভাবসুলভভঙ্গিতেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রি কথা বলেছেন এবারও। অবশ‍্য এবার তিনি সময় বেধে দেননি। বিডিনিউজ২৪ কার্যালয়ে হামলা ও সাংবাদিক নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের নাকি শিগগিরই ধরবে পুলিশ! এটা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রির কথা। এই ‘শিগগির’ কত লম্বা সময়ের তা উনি নিজেও হয়ত জানেন না। যেমনটা তিনি আজও বলতে পারছেন না যে সাগর-রুনির খুনিদের ধরতে বেধে দেয়া ২৪ ঘন্টা হতে আর কত মাস বাকি!
বাংলাদেশে ধারাবাহিক ও ক্রমবর্সাংধমান সাংবাদিক হত‍্যা-নির্যাতনের বিচার ও দোষীদের গ্রেফতার দাবি করে ঘটনাগুলির নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর ঝড় উঠেছে দেশে এবং বিদেশে। ব্লগ, ফেইসবুক, টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ‍্যমে ব‍্যাপক লেখালেখি। আমি কোন বিচার চাই না, নিন্দাও জানাবো না। কারণ এসব করে কোন লাভ আছে বলে মনে করি না আমি। স্বদেশে যা জরুরি তা হলো আইনের শাসন, প্রকৃতঅর্থে গণতন্ত্র চর্চা। আইনের শাসন ও গণতন্ত্র (প্রকৃতঅর্থের গণতন্ত্র)পুন:প্রতিষ্ঠা করা গেলেই দেশে সাংবাদিক হত‍্যা-নির্যাতন বন্ধ করা সম্ভব। তার আগে নয়। তাই বলছি দুবর্ৃত্ত রাজনীতির অবসানে জাগাতে হবে বাঙালিকে। এককাতারে আনতে হবে মানুষকে।
দলীয়করণ, দুর্নীতি ও দুবর্ৃত্তায়নবিরোধী একটা গণজাগরণ দরকার। সেইরকম একটা জাগরণের নেতৃত্ব দেয়ার জন‍্য কোন স্বচ্ছ রাজনৈতিক শক্তি সামনে এগিয়ে না আসলে দেশের ভবিষ‍্যৎ অন্ধকার ছাড়া আলোর কোন নিশানা খুঁজে পাওয়া কঠিন! আমি মনে করি না যে বাংলাদেশে মানবমুক্তির জন‍্য কোন রাজনৈতিক শক্তি নেই। কিন্তু সেই ঘুমন্ত শক্তিকে জাগাতে পারে একমাত্র গণমাধ‍্যমই। এটা বিদ‍্যমান গণমাধ‍্যম সংস্কৃতিতে সম্ভব কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে। কারণ গণমাধ‍্যম জনগণের মাধ‍্যম এখনও হয়ে উঠতে পেরেছে কিনা তাও প্রশ্নসাপেক্ষ?
গণমাধ‍্যমের ভেতরেই একটা শুদ্ধি অভিযান দরকার। যে অভিযানে কালো টাকার মিডিয়া মালিক, দলীয় সাংবাদিক ও সম্পাদকদের ঝেঁটিয়ে বের করে না দেয়া পর্যন্ত মিডিয়াকমর্ীদের ঐক‍্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলাটাও দুস্কর। ঐক‍্যবদ্ধ গণমাধ‍্যমই পারে দেশে আইনের শাসন ও প্রকৃত গণতন্ত্র চর্চার পথ পরিস্কার করতে। সাংবাদিকঐক‍্যই পারে অবিচার, অত‍্যাচার, দুর্নীতি ও দু:শাসনের বিরুদ্ধে দেশে একটা গণজাগরণ তৈরী করতে। তার আগে গণমাধ‍্যমকেই নিজেদের স্বচ্ছতা ও পরিচ্ছন্নতা (দলীয় লেজুড়বৃত্তিমূলক সাংবাদিকতা পরিহার করে)প্রমাণ করতে হবে। জনগণ তার প্রমাণ পাবেন তখনই যখন গণমাধ‍্যমকমর্ীরা একটি প্লাটফরমে দাঁড়াতে সক্ষম হবেন। সেইদিন কবে কতদিনে আসবে তা এই মুহুর্তে বলা কঠিন হলেও তা আসতেই হবে একদিন। জয় হবে মানুষ আর মানবতার। ধ্বংস হোক ক্ষমতালোভী, দুর্নীতিবাজ দুবর্ৃত্ত রাজনীতির। ছবি ফেইসবুক থেকে নেয়া।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s