গণতন্ত্র: আওয়ামী লীগ স্টাইল!

al
জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। আওয়ামী লীগের কাউন্সিল ও নেতা নির্বাচন নিয়ে এক নেতার মন্তব‍্য হলো “কী হবে, কী হবে না- তা আগেই নির্ধারিত ছিল। এ নিয়ে প্রত্যাশা নেই।” সূত্র বিডিনিউজ২৪। সূত্র লিখেছে, “কাউন্সিলে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন হয়নি। তা করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে।” এই হলো বাংলাদেশ ও আওয়ামী লীগের গণতন্ত্রের মডেল বা স্টাইল। সবকিছু পছন্দ, অপছন্দের ওপর মনোনীত করার গণতন্ত্র! নির্বাচন দিয়ে সরাসরি কাউন্সিলরদের ভোটে নেতা নির্বাচন করার সাহস নেই এমন এক গণতন্ত্র দেশের ১৬ কোটি মানুষের ভাগ‍্য নির্ধারণ করছে!
দেশটাকেতো বাবা নয়তো স্বামীর তালুকে পরিণত করা হয়েছে। গণতন্ত্রের নূ‍্যনতম চর্চাও সেখানে হয় না। জার্মানি, নরওয়ে বা ইউরোপ, আমেরিকার গণতন্ত্রচর্চার সঙ্গে কিঞ্চিৎ পরিচয় যাঁদের আছে তাঁরা নিশ্চয়ই আমার কথার সাথে একমত হবেন যে এই দেশগুলির গণতন্ত্রের সাথে তুলনা করলে বোঝা যায় দেখা যায় যে বাংলাদেশে কোন গণতন্ত্রই নেই! এই যে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে (সেটা বিএনপির বেলায়ও একইরকম) যেভাবে নেতা নির্বাচন করা হলো বা হবে ঠিক সেরকমই একটা গণতন্ত্র গণতন্ত্র পাতানো খেলাই দেশবাসি দেখে আসছে স্বাধীনতার পর থেকেই। দুর্নীতি, দল, নেত্রী আর ক্ষমতাই যার প্রধান নিয়ামক সেখানে গণতন্ত্র আশা করাটাও বোকামি ছাড়া আর কিছু নয়। অবিচার, অন‍্যায‍্যতার জালে দেশবাসি আটকা পড়েছে।
অন্ধ রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বমূলক কর্মকান্ড ছড়িয়ে পড়েছে বিচারালয় থেকে মিডিয়াপাড়া, জনপ্রশাসন থেকে শায়ত্বশাসিত ও আধাশায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, আইনজীবী থেকে চিকিৎসক, সাংবাদিক থেকে শিক্ষক সেখানে এমন কোন পেশা নেই যে পেশা হয় আওয়ামী বা তাদের এলায়ান্স নয়তো বিএনপি বা তাদের এলায়ান্সে বিভক্ত নয়। পাখির মতো বিনাবিচারে মানুষ হত‍্যা-নির্যাতন সেখানে এখন রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা পেয়েছে। দুর্নীতি সেখানে এখন রাষ্ট্রীয় নীতি! রাষ্ট্রীয় সমস্ত প্রতিষ্ঠান সেখানে পরাধীন, রাজনৈতিক দল যারা শাসন করে তাদের লাঠিয়াল বাহিনীর মতো কাজ করে। সমাজটাকে সততাই সবর্োৎকৃষ্ট সমস‍্যা এমনভাবে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে প্রতিদিন। মানুষের সেবা নয় ক্ষমতায় যাওয়া বা ক্ষমতাকে আঁকড়ে থাকাই যেখানে রাজনীতির মূল মর্ম সেখানে ন‍্যায়বিচার নির্বাসিত। রাজনৈতিক দুবর্ৃত্তপনার কারণেই বাড়ছে দলাদলি, সংঘাত, সহিংসতা, সাম্প্রদায়িকতা, অস্থিরতা।
গণতন্ত্রের মূল কথাই যেখানে অনে‍্যর মতের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন সেখানে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা কতটুকু তা প্রশ্নসাপেক্ষ। যেই যায় লংকায় সেই হয় রাবণ এই হলো রাজনীতির দর্শন। ওখানে টাকা ও সন্ত্রাসনির্ভর রাজনীতির কাছে পরাজিত সৎ ও স্বচ্ছ রাজনীতি। একমাত্র অসুস্থ‍্য রাজনীতির কারণেই সোনা বাংলা পৃথিবীতে বন‍্যা, ঝড়, জলোচ্ছ্বাস ও দুর্নীতির দেশ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। অথচ বাংলাদেশের যে অমিত সম্ভাবনা অপ্রস্ফুটিত অবস্থায় আছে তাকে আলোতে নিয়ে আসার মতো কোন রাজনীতি সেখানে কী আছে বিশেষত যারা দেশটাকে চালাচ্ছে বিগত সাড়ে তিন দশক ধরে?
সকল সর্বনাশের মাঝেও আমি আশার আলো দেখি। এই বাংলাদেশ নয় যে বাংলাদেশের জন‍্য ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছেন দুই লাখ মা বোন সম্ভ্রম হারিয়েছেন সেই বাংলাদেশ আজ না হোক, কাল নয়তো পরশু একদিন ঠিকই পাবেন বাংলার মানুষ। ক্ষমতা ও প্রতিহিংসার রাজনীতির কবর একদিন রচিত হবেই হবে। সেটা হয়ত আমি বা আমার প্রজন্ম নয় পরবর্তী প্রজন্ম ঠিকই অবলোকন করবেন কোন এক দিন। ছবি/ডেইলি স্টার এবং গুগল থেকে সংগৃহীত।

Advertisements

One response to “গণতন্ত্র: আওয়ামী লীগ স্টাইল!

  1. ট্র্যাজিক…

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s