Daily Archives: 18/04/2013

উনি কী স্বদেশ পরিস্থিতির সুযোগ নিতে চাচ্ছেন?

Dr-Yunus-US-Congress

জাহাঙ্গীর আলম আকাশ ।। দেশ এক গভীর সংকটে! স্বদেশের রাজনীতিতে এক অশুভ অশংনিসংকেত। ক্ষমতার জন্য দুই জোটের কামড়াকামড়ি। উভয় জোটই ধর্মকে রাজনীতিতে ব‍্যবহার করেই চলেছে।  দেশজুড়ে মৌলবাদিদের হুংকার, তান্ডব। গণতান্ত্রিক অধিকার হরতালের নামে বিরোধীদলের জ্বালাও-পোড়াও, ভাঙচুর, জনসম্পদের ওপর আক্রমণ। ব্লগারদের ওপর সরকারি খড়ক, চার ব্লগার গ্রেফতার ও রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ। জামাত-শিবির মারছে পুলিশ, পুলিশ করছে গুলি। বিনাবিচারে মানুষ হত্যা বন্ধ হয়নি। গুম হয়ে যাওয়া মানুষগুলিও ফিরে আসেনি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে (সবার নয়, গুটিকতকের)। গামর্েন্টস কারাখানাগুলিতে জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বেরুনোর সুব্যবস্থা নেই, তাই পোশাক শ্রমিকরা মরছেন আগুনে পুড়ে। হাঁড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করেও পোশাক শ্রমিকরা আজকের বাজারমূল্য অনুযায়ী শ্রমের ন্যায্য মজুরি। বিরোধীমতের সমর্থক এক সম্পাদককে (অনেকের মতে তিনি পেশাদার সাংবাদিক নন, তিনি জামাত বা বিএনপি, সে যাই হোক এমন সম্পাদক আরও অনেকে আছেন) গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়েছে সরকার। নারী নির্যাতন থামেনি। সাংবাদিক হত্যাকারিদের ধরা হচ্ছে না। সাংবাদিক দম্পত্তি সাগর-রুনির খুনিরা আজও পর্দার অন্তরালে!

দেশের এসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুস একেবারেই চুপচাপ। উনি এখন দেশ-বিদেশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন আর পুরস্কার, মেডেল ও সম্মান নিচ্ছেন। বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাশালী দেশের কাছ থেকে তিনি সম্মানিত হলেন আরেক দফায়। এর আগে তিনি পেয়েছেন নোবেল। তাও আবার শান্তিতে! তিনি নাকি দারিদ্রতাকে জাদুঘরে পাঠাবেন! দেশের সবচেয়ে দরিদ্রতর নারীদের কাছ থেকে তিনি সুদ নিচ্ছেন অস্বাভাবিকহারে। আর সেই দরিদ্রদের সঞ্চিত টাকায় তিনি আরাম-আয়েশে দেশ-বিদেশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তিনি পাচ্ছেন বাহবা, পুরস্কার, গোল্ড মেডেল আরও কত কী? আর গ্রামের সহজ-সরল, অধর্শিক্ষিত বা স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন নারীরা দরিদ্র থেকে দরিদ্রতর হয়ে পড়ছেন। কেউ কেউ ঋণের জালে আবদ্ধ হয়ে ঘটি-বাটি এমনকি বসতভিটেও হারাচ্ছেন। এই নোবেলজয়ী ব‍্যক্তি ও তার সুদখোর কারখানা দরিদ্রদের কাছ থেকে চড়াহারে সুদ নিলেও দরিদ্র নারীরা যে টাকা গচ্ছিত রাখছেন, আমানত রাখছেন এই কারখানায় তারা কত শতাংশ সুদ পাচ্ছেন নোবেলজয়ীর কারখানা থেকে তার হিসাব কী কেউ রাখি?

স্বদেশের সমসাময়িক সংকট ও পরিস্থিতির নিয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনুস চুপচাপ, কিছুই বলছেন না। নাকি উনি এমন পরিস্থিতিরই সুযোগ নিতে চাচ্ছেন প্রভূদের দ্বারা কিছু করায়ে? ছবি গুগল থেকে সংগৃহীত।

পৃথিবীর ধনী দেশগুলির শীর্ষ তালিকায় আছে নরওয়ে। আর আমাদের স্বদেশ পৃথিবীর দরিদ্র দেশগুলির  মধ্যে  অন্যতম। অথচ ড. ইউনুসের গ্রামীণ ফোন বাংলাদেশের মানুষের কাছ থেকে শুরুতে যে কলচাজর্ নিয়েছেন তা নরওয়েতে টেলিনর ব‍্যবহারকারী মোবাইল গ্রাহকদের কলচাজর্ের সমান। তাহলে এখন বুঝুন পুরস্কারটা কিসের ভিত্তিতে নিধর্ারিত হয়? আসলে সবই বাণিজ্য!

দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কোন সুযোগ নিতে চাচ্ছেন কী এই নোবেলবিজেতা? এমন প্রশ্ন এখন অনেকের মুখেই উচ্চারিত হচ্ছে। তাই নাকি উনাকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশটি সবর্োচ্চ সম্মানে ভূষিত করলো!